বুধবার, ০৮ Jul ২০২০, ০১:৪৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
শিরোনাম :
কওমী মাদরাসা খুলতে আলেমদের সাহসী ভূমিকা রাখতে হবে: নদভী পাকিস্তানের স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত করোনায় মুসলমান নাগরিকদের সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করছে শ্রীলঙ্কা সরকার প্রবাসীদের জন্য বিনামূল্যে ইকামার মেয়াদ তিনমাস বাড়ানোর নির্দেশ দিয়েছেন সৌদি সৌহার্দ্য বজায় : ঈদ হোক মোক্ষম করোনা ভাইরাস থেকে আমরা আসলে যে শিক্ষা নিতে পারি -বিল গেটস প্রাকৃতিক দুর্যোগে রাসূল সাঃ যে আমল করতেন এবং তাগিত দিতেন ইতিকাফ রব্বে কারীমের সঙ্গে আলাপনের মহান সুযোগ শবে কদর; সাতাশের রাতই কি সেই দিন? ১২মে দেখা যাবে সুরাইয়া তারকা: মিলবে কী করোনা থেকে মুক্তি? আলেম লেখকদের পাশে দাঁড়াচ্ছে বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরাম আল্লামা আহমদ শফী ও শীর্ষস্থানীয় আলেমদের ধন্যবাদ সারাদেশের মসজিদ উন্মুক্ত করে দেয়ার জন্য যে সকল শর্তসাপেক্ষে খুলে দেয়া হলো দেশের সকল মসজিদ মসজিদে নামাজ আদায় করা যাবে আগামীকাল জোহর থেকে রাতের আধারে বিডি আর্তসেবার ত্রাণ বিতরণ
মোবাইল ফোনে কথা বলতে গিয়ে ভদ্রতা হারাচ্ছেন নাতো?

মোবাইল ফোনে কথা বলতে গিয়ে ভদ্রতা হারাচ্ছেন নাতো?

ফোনে

আতাউল্লাহ বাশার: ফোনে কথা বলতে গিয়ে নিজের অজান্তে অনেকেই অসৌজন্য বা অভদ্রতার জানান দেয়। এই অজানা ভুল থেকে বেড়িয়ে আসার উপায় কি?

সমাজ দিনদিন আধুনিকপ্রযুক্তিশীল হচ্ছে খুব দ্রুত, কিন্তু জীবন যাপনের পদ্ধতি নিয়ে মানুষ এখনো বেখবর। অর্থাৎ সমাজবদ্ধ জীবনে পরষ্পর মেলামেশা, আচার-আচরণ এবং সকল শ্রেণীর মানুষের সঙ্গে স্বাভাবিক সম্পর্ক বজায় রাখার নিয়ম নীতিতে অনেকেরই জ্ঞান নেই ।

একজন মানুষের চলাফেরা উঠা-বসা এবং অন্যের সাথে তার আচার আচরণ এমন হওয়া দরকার যেন তার নিজেরও কষ্ট না হয় এবং অন্যেরো কষ্ট না হয় ৷ এসমস্ত আলোচনার পরিধি ব্যপক ৷ এখানে শুধু মোবাইলে কথা বলা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি শিষ্টাচার উল্লেখ করছি। কথাগুলো হৃদয়াঙ্গম করার সুবিধার্থে ক্রমিক নং দিয়ে উল্লেখ করা হলো।

  • সাক্ষাতের জন্য আগে থেকে সময় চেয়ে নিন।
  • সাক্ষাতের কাজ ফোনে সেরে নিন।
  • ফোনে স্পষ্টভাবে নিজের পরিচয় দিন।
  • যথাসময়ে ফোন করুন।
  • ফোনে হেলো না বলে সালাম করুন।

১. সাক্ষাতের জন্য আগে থেকে সময় চেয়ে নিন :

মানুষ সমাজবদ্ধ জীব। সকল প্রয়োজন মিটিয়ে একা একা বসবাস করা আদৌ সম্ভব নয়। তাই সর্বশ্রেণীর মানুষই একে অপরের সাক্ষাতের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকে। অতএব আপনার যখন কারও সাক্ষাৎ লাভের প্রয়োজন হয় ; হতে পারে তিনি তখন কর্মব্যস্ত কিংবা শারীরিক মানসিকভাবে সে সময়ে সাক্ষাৎ করতে প্রস্তুত নয়। আর তার অপ্রস্তু এর বিষয়টা আপনারও অজানা।

এরকম অবস্থায় আপনার ফোন কল উভয়ের জন্য বিড়ম্বনার কারণ হতে পারে । তাই উচিত হলো সাক্ষাতের আগে সময় চেয়ে নেওয়া কিংবা কথা শুরুর আগে তিনি অবসর আছেন কিনা তা জেনে নেওয়া ৷

২. সাক্ষাতের কাজ ফোনে সেরে নিন :

কারো কোন কাজ যদি অন্য লোকের সাথে সম্পৃক্ত থাকে আর তা মোবাইলে সেরে নেওয়া যায় তাহলে সাক্ষাতের চিন্তা না করা উচিত। কারণ যাওয়া আসায় টাকা নষ্ট হয় এবং আজকাল রাস্তাও নিরাপত্তাহীন। তাছাড়া ফোনে কাজ সেরে নিলে মূল্যবান সময়ও নষ্ট হয় না। আজকাল ফোনে দাওয়াত দিলে কেউ কেউ অপমান বোধ করে ৷ এ মনমানসিকতা বর্জন করা উচিত৷

৩. ফোনে স্পষ্টভাবে নিজের পরিচয় দিন :

আমাদের মাঝে পরিচয় গোপন রাখার প্রবণতা খুব বেশি দেখা যায় । ফোনে কথা বলাটা যেহেতু চিঠি পত্র সাদৃশ, তাই নিয়ম হলো প্রথমে নিজের পরিচয় দেওয়া, যেন ফোন রিসিভকারী বিরক্তিতে না পরে। এতে একটি সুন্নতও আদায় হয়ে যাবে।

তবে সপ্তায় সপ্তায় কথা বললে কিংবা চিনতে পেরেছেন তা নিশ্চিত হলে আর পরিচয় দেওয়ার প্রয়োজন নেই। প্রায় সময় অচেনা নাম্বারে ফোন আসে এবং পরিচয় না দিয়েই কথা শুরু করে ৷

তখন ‘আপনি কে বলছেন’ কথাটি জিজ্ঞেস করতে ভীষণ লজ্জা হয়৷ কেউ আবার উল্টো প্রশ্ন করে ‘বলেন তো আমি কে?’৷ কাওকে আবার দেখা যায় দু’তিন মিনিট কথা বলে কিন্তু পরিচয় দিতে রাজি না, শেষে অভিমান করে ফোন কেটে দেয় ৷

৪.যথাসময়ে ফোন করুন :

কিছুদিন আগে আমি ফেসবুকে পোস্ট করছিলাম যে, নামাজের সময় ফোন করা থেকে বিরত থাকুন! অনেক ভদ্রলোক আমাকে প্রশ্ন করলো আপনি ফোন খোলা রাখবেন কেন? খোলা রাখলে ফোন দেয়া অপরাধ নয় ইত্যাদি ৷ কিন্তু তারা যদি এটা বুঝতেন যে, অনেকে ফোন বন্ধ করতে ভুলে যায়, কিংবা কোন ভদ্রতার কারণে ফোণ খোলা রাখে ৷ তাই আমি কেন ভদ্রতার সুযোগ নিবো!

আচ্ছা যাক; আমি কেবল ভদ্রতার দিক লক্ষ্য করেই কিছু লিখতে চাচ্ছি ৷ ন্যায় অন্যায়ের ফয়সালা তো সবার বিবেকের কাছে ৷

যাদের সাথে নিয়মিত ফোনালাপ হয়, উচিত হলো তাদের দৈনন্দিন রটিন জেনে নেওয়া ৷ নামাযের জামাতের সময়, কাজের সময়, আরামের সময়, পানাহারের সময়, যিকির আযকার, অজিফা ইত্যাদি আদায়ের সময় কাউকে ফোন করা ঠিক নয় ৷

বিশেষ করে ওই সময়ে ফোন করা ঠিক নয় যার সময়টা নিজস্ব এখতিয়ারে নয়; বরং এ সময়ে সে কোন প্রতিষ্ঠান বা কোন নির্দিষ্ট দায়িত্বে আবদ্ধ তাহলে এ সময়টা তার সেখানেই ব্যয় করা উচিত ৷

৫. ফোনে হেলো না বলে সালাম করুন :

কথা বলার শুরুতে ইসলামী অভিবাদন হলো সালাম ৷ তাছাড়া নিজস্ব রীতিনীতি ভুলে গিয়ে বিধর্মীদের চালচলন গ্রহণ করা ইসলাম ধর্মে নিষিদ্ধ ৷ সেই দিকে বিবেচনায় মুসলমানের জন্য হেলো শব্দ ব্যবহার করা অনুচিত ৷

তাই যতোবারই আপনার কথা রিসিভকারী না শোনবে ততোবারই সালাম করুন ৷ আল্লাহর রাসূল সা· বলেছেন তোমরা সালামের প্রসার করো ৷

পরিশেষে এ কথাও বলে দেওয়া প্রয়োজন মনে করছি যে, তাদের সাথে এসমস্ত শিষ্টাচার রক্ষা করে চলা, যারা সময়কে রুটিন বানিয়ে জীবন চালায় ৷

লেখক- কবি, শিক্ষক, গবেষক।

সংবাদটি শেয়ার করে অন্যদের জানার সুযোগ করে দিন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2019-2020.somokalin24.com
Desing & Developed BY NewsRush